• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ১০:১৩ অপরাহ্ন

কুমিল্লা-৫ আসনে সরকার দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী‌ আব্দুল জলিলের ব্যাপক গণসংযোগ


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১, ২০২৩, ১১:২৭ অপরাহ্ন / ৭৩
কুমিল্লা-৫ আসনে সরকার দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী‌ আব্দুল জলিলের ব্যাপক গণসংযোগ

কে এম সাইফুর রহমান, কুমিল্লাঃ আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা–৫ (বুড়িচং – ব্রাহ্মণপাড়া) নির্বাচনী এলাকায় মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার স্বপক্ষের দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও শিক্ষানুরাগী মোঃ আব্দুল জলিল ব্রাহ্মণপাড়ার বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেছেন।

শুক্রবার বিকালে বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে তিনি ব্রাক্ষণপাড়া উপজেলা সদর ইউনিয়নের দীর্ঘভূমি, মহালক্ষীপাড়া গ্রাম ও শিদলাই ইউনিয়নের গোলাবাড়িয়া, গাজী মার্কেট, শিদলাই বাজার সহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে তিনি সকল শ্রেণি- পেশার মানুষের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও কুশল বিনিময় করেন।

এ সময় মানবতার ফেরিওয়ালা নামে খ্যাত আব্দুল জলিলের সমর্থিত নেতাকর্মীরা দেশের প্রাচীনতম দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন ও সাফল্যের তথ্যচিত্র তুলে ধরে লিফলেট বিতরণ করেন এবং আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের পক্ষে ভোট প্রার্থনা করেন।

কুমিল্লা-৫ (বুড়িচং – ব্রাহ্মণপাড়া) আসনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী আব্দুল জলিল দলীয় সকল কার্যক্রমের সাথে সক্রিয় থেকে দীর্ঘদিন ধরে গরীব, দুঃখী, মেহনতী ও অসহায় মানুষের সেবা করে চলেছেন। করোনা কালীন সময়েও তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আহবানে সাড়া দিয়ে ব্যক্তিগত উদ্যোগে অসহায় মানুষের পাশে নগদ অর্থ ও খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন। শুধু তাই নয় দেশের অর্থনীতিতেও আব্দুল জলিল স্যারের অবদান অনস্বীকার্য। পেশাগত দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে তিনি সততা ও বিশ্বস্ততার সহিত কুমিল্লা সহ দেশের বিভিন্ন জেলার প্রায় দুই হাজার অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে আইইএলটিএস ও স্পোকেন ইংলিশ শিখিয়ে দেশ- বিদেশে উচ্চশিক্ষা অর্জনের পাশাপাশি কর্মসংস্থানেও ব্যাপক ভূমিকা রেখে চলেছেন। ওই সকল প্রবাসীদের উপার্জিত রেমিটেন্স দেশের অর্থনীতিতে যথেষ্ট অবদান রেখে চলেছে।

গণসংযোগ চলাকালীন সময়ে তিনি গণমাধ্যমকে জানান, আমাকে সুযোগ দেওয়া হলে বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমি নিরলসভাবে কাজ করে যাবো। সকলকে সাথে নিয়ে এলাকার রাস্তাঘাট উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষা ক্ষেত্রেও ব্যাপক ভূমিকা রাখতে চাই। এখানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি আধুনিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করতে চাই। গরিবের বন্ধু আব্দুল জলিল আক্ষেপ করে আরো বলেন, আমি সৎ ভাবে উপার্জিত অর্থ ব্যয়ে বিভিন্ন ধরনের মানবিক কর্মকান্ড ও দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছি। এতে কতিপয় রাজনীতিবিদেরা আমার সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে অন্যায়ভাবে আমাকে আওয়ামী লীগের দলীয় পদ-পদবী থেকে বঞ্চিত করেছেন। তাতেও আমার কোন দুঃখ নেই, আমি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা আপাকে শ্রদ্ধা করি। মহান আল্লাহ পাক তাদের দুইজনকে সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘায়ু দান করুন। এর আগেও এই আসনে উপ-নির্বাচনে আমার ব্যাপক জনসমর্থন থাকা সত্ত্বেও আমাকে দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। আমি এবং আমার পূর্বপুরুষেরাও আওয়ামী রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন। প্রয়োজনে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতাকর্মী ও গোয়েন্দা সংস্থার গোপন প্রতিবেদনে আমার জনসমর্থন এবং ব্যক্তি হিসেবে আমি কেমন? তা যাচাই-বাছাই করে নিতে পারেন। মহান আল্লাহ পাক আমাকে যা দিয়েছেন আমি তাতেই সন্তুষ্ট। আমার চাওয়া পাওয়ার তেমন কিছুই নেই, যতদিন বাঁচবো বঙ্গবন্ধুর আদর্শকেই বুকে ধারণ করে আওয়ামী লীগের জন্য তথা গরিব-দুঃখী, মেহনতী মানুষের জন্য কাজ করে যাবো। তাছাড়া আপনাদের (গণমাধ্যমকর্মীদের) মাধ্যমে জানাতে চাই বঙ্গবন্ধু কন্যা তরুণ, ত্যাগী ও মেধাবী নেতাকর্মীদের বরাবরই মূল্যায়ন করতে জানেন। আমি আশাবাদী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা—৫ (বুড়িচং—ব্রাহ্মণপাড়া) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দেবেন। আমি এই বুড়িচং-ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার জনগণের সুখে—দুঃখে পাশে ছিলাম, আছি এবং আগামীতেও থাকবো ইনশাল্লাহ। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনীত প্রার্থী হিসেবে আমি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করলে সকলের সহযোগীতায় এই আসনটি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে পারবো ইনশাল্লাহ্।