• ঢাকা
  • শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:১৯ অপরাহ্ন

কক্সবাজারের ফুলছড়িতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ


প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারী ৮, ২০২৪, ১:৫২ অপরাহ্ন / ২১
কক্সবাজারের ফুলছড়িতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজারঃ কক্সবাজারের উত্তর বন বিভাগের ফুলছড়ি রেঞ্জের অধিনস্থ ফুলছড়ি বন বিটের আওতাধীন অরইতলী এলাকায় বন বিভাগের অভিযান চালানো হয়েছে। এ সময় বন বিভাগের জায়গায় অবৈধ ভাবে নির্মিত পাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করে অন্তত ৬০ শতাংশ বনভূমির জায়গা অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে দখল মুক্ত করা হয়। শনিবার সকালে কক্সবাজার বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) আনোয়ার হোসেন সরকারের নির্দেশনায় ফুলছড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা হুমায়ুন আহমেদ নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়।

অভিযান সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন ফুলছড়ি রেঞ্জের ফুলছড়ি বন বিটের অরইতলী এলাকায় বনভূমি দখল করে অবৈধ ভাবে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করে কতিপয় ভূমিদস্যু রশিদ।অরইতলী এলাকায় অবৈধ বসতি স্থাপনা তৈরির সংবাদ পেয়ে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) আনোয়ার হোসেন সরকারের নির্দেশনায় শনিবার সকালে অভিযান চালিয়ে অরইতলী এলাকা থেকে গড়ে তোলা পাকা দালান ঘর উচ্ছেদ করে গুড়িয়ে দেয়া হয়। এ সময় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে অন্তত ৬০ শতাংশ বনভূমির জায়গা অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে উদ্ধার করে দখলমুক্ত করা হয়।

ফুলছড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা হুমায়ুন আহমেদ নেতৃত্বে এ অভিযানে অংশ নেন ফুলছড়ি বন বিট কর্মকর্তা ফজলুল কাদের চৌধুরীসহ রে‌ঞ্জের স্টাফবৃন্দ, ভি‌লেজার ও সি‌পি‌জি সদস্যবৃন্দরা অ‌ভিযা‌নে অংশনেন।

অভিযানের নেতৃত্বে দেয়া রেঞ্জে কর্মকর্তা হুমায়ুন আহমেদ জানান, কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন ফুলছড়ি রেঞ্জের ফুলছড়ি বিটের অরইতলী এলাকায় বনভূমির জায়গায় অবৈধ দখলদার পাকাঘর নির্মাণ করে বসতি গড়ে তুলেন। স্থাপনা নির্মাণের খবর পেয়ে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) নির্দেশনায় বন বিভাগের একদল বন কর্মীদের নিয়ে অভিযান চালিয়ে অবৈধ ভাবে গড়ে তোলা স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়ে দখল উচ্ছেদ করা হয়।

রেঞ্জ কর্মকর্তা আরও জানান, জড়িতদের বিরুদ্ধে বন আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বন বিভাগের জমি রক্ষায় এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।