• ঢাকা
  • শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:৫০ অপরাহ্ন

ঈদগাঁতে মধ্যরাতে বৈদ্যুতিক ফাঁদ পেতে বণ্য হাতি হত্যা


প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৫, ২০২৩, ৪:১১ অপরাহ্ন / ২১
ঈদগাঁতে মধ্যরাতে বৈদ্যুতিক ফাঁদ পেতে বণ্য হাতি হত্যা

সায়মন সরওয়ার কায়েম, কক্সবাজারঃ কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে বৈদ্যুতিক ফাঁদ পেতে বন্য হাতি হত্যার অভিযোগ উঠেছে ঈদগাঁও ইউনিয়ন ৯নং ওয়ার্ডের নজির আহমদের ছেলে আব্দু জলিল নামের এক বড়ই বাগান মালিকের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাতে ঈদগাঁও উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড শিয়া পাড়া নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানিয়রা জানান হাতি হত্যা করার পুর্বপ্রস্তুতি ছিলো জলিলের। এমনকি হাতি হত্যা করে স্বদেশ ত্যাগের পরিকল্পনাও ছিলো তার। তবে বণ্য হাতিকে ঘিরে তার এমন কর্মকাণ্ডের কারণ জানা যায়নি।

তবে অনেকেই ধারণা করছেন, আব্দু জলিলের মালিকানাধীন বড়ই বাগানে বণ্য হাতির আক্রমনে ক্ষুব্ধ হয়ে জলিল এমন কর্মকান্ড চালানোর পরিকল্পনা করেন। অনেক সময় স্থানীয়দের সামনে বণ্য হাতি হত্যার হুমকিও দেন জলিল। এবং হাতি হত্যার উদ্দেশ্যে বৈদ্যুতিক তার দিয়ে ফাঁদও পাতেন দীর্ঘ সময় ধরে। পরিশেষে ২৩ নভেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে জলিলের ফাঁদে পা দেন বন্য এক বাচ্চা হাতি। এবং বৈদ্যুতিক শক লেগে জলিলের বড়ই বাগানের পাশেই মারা যায় হাতিটি।

খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন সরকার,ঈদগাঁও উপজেলার নব দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা সুবল চাকমা,সহাকারী বনরক্ষক ড. প্রান্তুষ চন্দ্র রায়, ঈদগাঁও রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন খান। সেই সাথে, ভোমরিয়াঘোনা বীট কর্মকর্তা মোবিনুর রহমান। এবং ঈদগাঁও থানা পুলিশের টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মৃত বণ্য হাতিটির প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট করেন।

রেঞ্জ কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেনের কাছে বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান হাতিটিকে বৈদ্যুতিক শক দিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে স্থানীয়রা দাবি করলেও এমন কোনো আলামত পাওয়া যায়নি হাতিটির শরীরে কিংবা ঘটনাস্থলে। তবে তদন্তের মাধ্যমে সত্যতা নিশ্চিত করে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।