• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৪ Jun ২০২৪, ০৬:৩২ অপরাহ্ন

অস্ত্রধারী দুর্ধর্ষ ক্যাডার ‘আলিফ এখন দারুস সালাম থানা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা


প্রকাশের সময় : অগাস্ট ৫, ২০২১, ১০:৪২ পূর্বাহ্ন / ১৩৮৮
অস্ত্রধারী দুর্ধর্ষ ক্যাডার ‘আলিফ এখন দারুস সালাম থানা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দারুস সালাম থানা এলাকার অস্ত্রধারী ও সন্ত্রাসী আলিফ এখন থানা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ৷ গত ১০/০৭/২০২১ ইং তারিখে দারুস সালাম থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোহাম্মদ ইসলাম স্বাক্ষরিত দলীয় প্যাডে তার নাম ঘোষণা করা হয়।

দারুস সালাম থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটিতে এরকম ঘটনা এটিই নতুন নয় এর আগেও দারুস সালাম থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোহাম্মদ ইসলাম আরেক বিএনপি নেতা এবং সিটি কর্পোরেশনের সরকারি চাকরিজীবী মোহাম্মদ জামাল কে দারুস সালাম থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা বানিয়েছিলেন এটি তৎকালীন সময় বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় এবং টিভি চ্যানেলে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর উক্ত নেতা চাকরীচ্যুত হন এবং মোহাম্মদ ইসলাম দলীয় চাপের মুখে তাকে বহিষ্কার করতে বাধ্য হন।

দারুস সালাম থানা এলাকায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিভিন্ন কর্মীর কাছ থেকে জানা যায় মোহাম্মদ ইসলাম টাকার বিনিময় জামাত-বিএনপি’র সক্রিয় সদস্যদের কে আশ্রয়-প্রশ্রয় এমনকি দলের পদ-পদবী দিয়ে থাকেন । স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ইসলামের অনিয়ম ও দুর্নীতি নিয়ে ইতিপুর্বে একাধিক পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলেও ইসলাম আছেন ধরা ছোয়ার বাইরে ৷ সবাই যেন তার কাছেই জিম্মি।

এই বিষয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোঃ ইসহাক এই প্রতিবেদক কে বলেন বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক লীগ যারা করছে তারা ছাত্রলীগ থেকেই এসেছে এই ধরনের কর্মকাণ্ড করার মতো স্বেচ্ছাসেবক লীগের কোন নেতাকর্মীর সুযোগ নাই । তবে এখন যে কমিটি আছে এটি আমি আসার আগে হয়েছে আমি আসার পরে নতুন করে কোনো কমিটি হয় নাই তাই এই বিষয়টি আমি সঠিকভাবে বলতে পারছিনা তবে আমি এই বিষয়টি সুষ্ঠুভাবে দেখব এবং আপনাদের কে এতোটুকু আশ্বস্ত করতে চাই বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের এই ধরনের অনুপ্রবেশকারী থাকবে না।

দারুস সালাম থানা এলাকায় তৃণমূল পর্যায়ের আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ এর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মী ও প্রত্যাক্ষদর্শীদের কাছ থেকে জানা যায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নব্য নেতা মোঃ আলিফ এক সময় বর্তমান দারুস সালাম থানা যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও তৎকালীন ১২ নং ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি হাশেম শেখের ক্যাডার ছিলেন এবং তিনি আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মীর উপর হামলা এবং নির্যাতন করছেন যার প্রমাণ স্বরূপ তৎকালীন সময়ের বিভিন্ন ছবি প্রতিবেদকের হাতে এসেছে ।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল গুহ এই প্রতিবেদক কে বলেন এই বিষয়টি আমার জানা ছিল না তবে এ বিষয়টি আমি গুরুত্বসহকারে দেখব এবং এই ধরনের কোন ঘটনা ঘটলে বাংলাদেশ স্বেচ্ছাসেবক লীগ অবশ্যই তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে । তিনি আরো বলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের একটি বৃহত্তর রাজনৈতিক দল এবং একটি অন্যতম রাজনৈতিক সংগঠন তাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এই ধরনের কর্মকাণ্ডে কখনোই প্রশ্রয় দেয়নি ভবিষ্যতেও দিবেনা ।

দারুস সালাম থানা এলাকার তৃনমুল আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীর চাওয়া দলে এমন কোন নেতা নির্ধারণ করা হোক যে টাকার বিনিময়ে পদ বাণিজ্য করবে না যা দল এবং দেশের জন্য ক্ষতি হয়।

এ বিষয়ে জানতে আলিফের ফোনে একাধিক বার ফোন দিলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায় বলে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি ৷