• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ Jun ২০২৪, ০২:৫৬ অপরাহ্ন

অবশেষে মানব পাচার মামলায় ইউসুফ গ্রেফতার


প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২৩, ১:৪৪ অপরাহ্ন / ১১৪
অবশেষে মানব পাচার মামলায় ইউসুফ গ্রেফতার

এম রাসেল সরকারঃ রাজধানীর উত্তরখান থেকে মানব পাচারকারী চক্রের সদস্য ইউসুফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উত্তরখান থানা পুলিশের সহযোগিতায় শরিয়তপুরের পালং সদর থানা পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। আটক ইউসুফ রাজধানীর উত্তরখান থানার মধ্যপাড়ার নুরুল হকের ছেলে। এম ওহেদুজ্জামানের দায়ের করা মানব পাচার মামলায় ইউসুফকে গ্রেফতার দেখিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উত্তরখান মধ্যপাড়া নিজ বসত বাড়ী থেকে ইউসুফকে মানব পাচার মামলার ওয়ারেন্টে গ্রেফতার করে শরীয়তপুর সদর পালং মডেল থানায় নিয়ে আসা হয়।

মামলা সুত্রে জানা যায়, ইউসুফ ওহেদুজ্জামানের ভাগিনা জোহান আহম্মেদ ইমুকে ইতালি পাঠানোর কথা বলে প্রথমে ৪ লাখ টাকা নেন। পরবর্তিতে লিবিয়া নিয়ে বদ্ধ ঘরে আটকিয়ে জোড় পূর্বক ৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

মামলা সুত্রে আরো জানা যায়, মামলার অপর আসামি ইসমাইল তালুকদার( ৫৫) মিলে ইতালি পাঠানোর উদ্দেশ্য জোহান আহম্মেদ ইমুকে লিবিয়া পাঠায়। আসামীদ্বয় তাদের এজেন্ট নামীয় লাঠিয়াল বাহিনী দ্বারা ইমুকে বদ্ধ ঘরে আটক রেখে শারীরিক নির্যাতন করেন।

দালালদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে গত বাদির ভাগিনা বাদিকে লিবিয়া থেকে গোপনে ফোন করে নির্যাতনের বর্ননা দিয়ে কান্নাকাটি করে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার কথা বলে। বিষয়টি নিয়ে বাদী একাধিকবার আসামিদ্বয়কে জানালে ও তারা নানান তালবাহানা করে ঘুরাইতে থাকে।

দীর্ঘ ৯ মাস অতিবাহিত হওয়ার পর বাদীর ভাগিনার সাথে পরিবারের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এ বিষয় গুলো বাদী আবারো আসামিদ্বয়কে জানালে তারা মিথ্যা কাহিনি সাজাইয়া বাদীকে ভয়ভীতি প্রদর্শন ও হয়রানি করা শুরু করে।

একাধিক সুত্রে জানা যায়, উত্তরখান মধ্যপাড়া সরকার বাড়ি এলাকার বাসিন্দা বহুমুখী প্রতারক ইউসুফ দীর্ঘদিন যাবৎ জাল টাকার ব্যবসার সাথে জড়িত। জালটাকা বানানো এবং বিক্রি করার সময় সে প্রশাসনের হাতে গ্রেফতার হয়। ঐ মামলায় সহযোগি সহ তার তিন বছর সাজা হয়।

সুত্রে আরো জানা যায়, কয়েক বছর আগে সে তার সহযোগীদের নিয়ে র‌্যাব পরিচয়ে জমি দখল করতে গিয়ে প্রশাসনের হাতে গ্রেফতার হয়। ইউসুফের বিরুদ্ধে উত্তরখান থানাসহ বিজ্ঞ আদালতে একাধিক মামলা ও রয়েছে।