• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন

অপকর্মকারীরা নমিনেশন পা‌বে না : কা‌দের


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৯, ২০২২, ৬:০২ অপরাহ্ন / ২৩
অপকর্মকারীরা নমিনেশন পা‌বে না : কা‌দের

জ্যেষ্ঠ প্রতি‌বেদক: আওয়ামী লী‌গ সাধারণ সম্প‌াদক ওবায়দুল কাদের ব‌লে‌ছেন, যারাই অপকর্ম করে, গডফাদারগিরি করে দলের দুর্নাম কামিয়েছেন- আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন তারা কিছুতেই পাবে না। এটা নেত্রীর পরিষ্কার নির্দেশ।তি‌নি বলেন, দলকে সুনামের ধারায় ফিরে আনতে হবে। আওয়ামী লীগের নামে অপকর্ম করবেন না। যারাই অপকর্ম করছে তাদের তথ‌্য নেত্রীর কাছে জমা আছে। শেখ হাসিনার কাছে নমিনেশন চাইবেন, হিসাব আছে। খারাপ আছেন, ভালো হয়ে যান। শুদ্ধ হয়ে যান। বুধবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট পরিচালিত ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রাঙ্গণে ‘স্বপ্ন ও সম্ভাবনার স্ফুলিঙ্গ- শেখ রাসেল’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের একথা বলেন।

দুর্ভিক্ষ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন, তার পাল্টা জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বৈশ্বিক পরিস্থিতির কথা তুলে ধরতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আগামীতে দুর্ভিক্ষের সম্ভাবনা আছে। যে পূর্বাভাস দিয়েছে আইএমএফ ও বিশ্বব্যাংক। শেখ হাসিনা তো সেটাই বলেছেন। এখানে অন্যায় কী করেছেন? আর উনি দেখেছেন বাংলাদেশের দুর্ভিক্ষ। দেশে নাকি এখন দুর্ভিক্ষ হচ্ছে। কোথায় একজন মরেছে? সোমালিয়া মরেছে। সোমালিয়া গিয়ে দেখুন। বাংলাদেশকে সোমালিয়া বানাবেন না। বাংলাদেশ ইনশা আল্লাহ সোমালিয়া, আফগানিস্তান হবে না। বাংলাদেশে সেই পরিস্থিতি হয়নি।

ওবায়দুল কা‌দের ব‌লেন, সংকটে আছে, সেটা প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেছেন। আমাদের খাদ্য আছে, তেলের একটু সংকট আছে। কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করছি। ব্রুনাই থেকেও আমরা জ্বালানির ব্যাপারে সহযোগিতার চুক্তি হয়েছে। এ সময় আওয়ামী লী‌গের সাধারণ সম্পাদক ব‌লেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে ‘পলিটিক্যাল রুমে’র নামে সিট বাণিজ্য, ভর্তি বাণিজ্য করে ছাত্রলীগের যারা দলের সুনাম নষ্ট করেছে, তাদের তালিকা তৈরি হচ্ছে। তিনি বলেন, সিট বাণিজ্য, ভর্তি বাণিজ্য, টাকা নিয়ে পলিটিক্যাল রুম- এসব যারা করে তাদের তালিকা তৈরি হচ্ছে। তাদের খবর আছে, ক্ষমা নেই।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের ৫৯তম জন্মদিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই আলোচনা সভায় আয়োজন করা হয়। সভায় শেখ রাসেলের নিজ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে মেধা বৃত্তি, দরিদ্র তহবিলে বিশেষ অনুদান ও শিক্ষার উপকরণও বিতরণ করে হয়। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন, আনিসুর রহমান বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল হালিম। সঞ্চালনা করেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির সদস্য সচিব সুজিত রায় নন্দী।