শিরোনাম

ডিম কি প্রতিদিন খাওয়া উচিত?

47173_140আপনি কি ডিম খেতে ভালোবাসেন? যদিও রোজ ডিম খেলে কোলেস্টেরল বেড়ে যাওয়ার ভয় থাকে, তা হলেও ডিমের কিন্তু বহু উপকারিতাও আছে। আসুন দেখা যাক সেগুলো কী কী- ১. ব্রেকফাস্টে যদি রোজ ডিম খান তাহলে আপনার পেট অনেকক্ষণ ভরা থাকবে। তাই অন্য খাবার খেতে ইচ্ছে করবে না আর। ফলে ওজন বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা অনেকটাই কমে যায়।

২. আপনার যদি মাঝে মাঝেই মাথা ব্যথা করে বা খুব অল্পেই ক্লান্ত লাগে, তাহলে আপনি হয়তো রক্তাল্পতায় ভুগছেন। একবার রক্ত পরীক্ষা করিয়ে নিন। আপনার যদি আয়রন ডেফিসিয়েন্সি হয়ে থাকে তাহলে ডিম খেলে অনেক উপকার পাবেন।

৩. সমীক্ষা বলছে যাঁরা ডিম খান না তাদের ভিটামিন এ, ই আর বি-১২ এর ডেফিসিয়েন্সি দেখা দিয়েছে |

৪. ডিমের সাদা অংশে অনেক প্রোটিন আছে যা শরীরের জন্য খুব দরকার।

৫. ডিমে থাকা choline স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এমনকী অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় গর্ভে থাকা বাচ্চার ব্রেন ডেভলপমেন্টেও সাহায্য করে।

৬. পালংশাক বা ব্রকোলির মতোই ডিম দৃষ্টি শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এমনকী চোখের ছানি হওয়ার আশঙ্কা অনেকটাই কমিয়ে দেয়। এছড়াও ডিমের মধ্যে ভিটামিন ডি থাকে যা শরীরের হাড় শক্ত করে।

৭. আপনার শরীরে যদি নিউট্রিশনের কমতি হয় তাহলে সব থেকে প্রথমে চুল আর নখের ক্ষতি হয়। কিন্তু নিয়মিত ডিম খেলে এটা এড়ানো যাবে। ডিমের মধ্যে অ্যামিনো অ্যাসিড ছাড়াও অনেক গুরুত্বপূর্ণ মিনারেল আর ভিটামিন আছে যা আপনার চুল আর নখকে আরো উন্নত করবে।

৮. দেখা গেছে ডিম নারীদের ব্রেস্ট ক্যান্সার রোধ করে। পরীক্ষা করে দেখা গেছে যে নারী সপ্তাহে অন্তত ৬টি ডিম খেয়েছে তাদের ৪৪% পর্যন্ত ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা কমে গেছে।

৯. শরীরে কোথাও inflammation হলে ডিমের মধ্যে যে choline আছে তা কমাতে সাহায্য করে।

১০. ডিমের মধ্যে Selenium আছে যা ক্যান্সার হওয়ার চান্স কমায়। পুরুষদের বেশি করে ডিম খাওয়া উচিত। তাহলে প্রস্টেটে টিউমার হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়।

Be Sociable, Share!
বিভাগ: সর্বশেষ খবর, স্বাস্থ্য সেবার খবর

এখনো কোন মন্তব্য করা হয়নি.

মন্তব্য করুন

*