শিরোনাম

এ বছর যাঁরা ‘ঘ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা দেবেন

4bce15480ead58e5679c655a88d04398-59afe600c066aনিজস্ব প্রতিবেদক: বর্তমান বিশ্বে টিকে থাকতে হলে জ্ঞান অর্জন করতে হবে। মনে রাখবেন সফলতার কোনো সংক্ষিপ্ত পথ নেই। জীবনযুদ্ধে ক্লান্ত হলে বিশ্রাম নিন কিন্তু রণক্ষেত্র ছেড়ে কখনো পালিয়ে যাবেন না।

গত বছর আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটে ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে প্রথম হই। এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন নিয়ে পড়ছি। আমার সাফল্যের পেছনে ছিল প্রবল ইচ্ছাশক্তি আর পরিশ্রম। খুব শিগগিরই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। এ বছর যাঁরা ‘ঘ’ ইউনিটে পরীক্ষা দেবেন, তাঁদের জন্য আমার কিছু পরামর্শ থাকছে।

১. ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটে ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের জন্য বলব, বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান—এ তিনটি বিষয় ভালোভাবে আয়ত্তে আনতে পারলে চান্স পাওয়াটা খুব সহজ হয়। এর জন্য নিজেকে কিছু কৌশল তৈরি করে নিতে হয়।
২. বাংলার জন্য নবম-দশম শ্রেণির বোর্ডের বই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিগত বছরে আসা প্রশ্নগুলো সব সময় প্র্যাকটিস করতে হবে। ইংরেজিতে ভালো করতে হলে ভোকাবুলারি পার্ট মুখস্থ রাখতে হবে এবং গ্রামার প্র্যাকটিসের সময় তা প্রয়োগ করে যাচাই করে নেওয়া উচিত। সাধারণ জ্ঞানের জন্য নির্দিষ্ট কোনো সাজেশন নেই। বাজারে বিভিন্ন ধরনের বই পাওয়া যায় সেগুলো সংগ্রহ করে ভালোভাবে পড়তে হবে। কারণ আমি মনে করি, ভর্তিযুদ্ধে জয়ী হতে হলে ওপরের ক্লাসের বই নয় বরং নিচের ক্লাসের একাডেমিক বিষয় রিভিশন দিতে হবে। বেসিক জ্ঞানের জন্য প্রাকৃতিক, ভৌগোলিক, সামাজিক ও ধর্মভিত্তিক জ্ঞান আহরণ করতে হবে। শুধু বই পড়ে একজন প্রকৃত মানুষ হওয়া যায় না। নিজের বিবেক-বুদ্ধিকে কাজে লাগিয়ে জ্ঞান অর্জন করে একজন মানুষের মতো মানুষ হতে হয়।
৩. চার মাসের এই সময়টুকুই নির্ভর করে ভবিষ্যতে আপনি কী করবেন? তাই সময়গুলোকে অনেক বেশি মূল্য দিতে হবে। সাধারণ জ্ঞানের জন্য সাম্প্রতিক ঘটনাগুলোকে সব সময় জানতে হলে মাসিক কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স পড়তে হবে। পরীক্ষার কিছুদিন আগে বের হওয়া হাইলাইটসগুলো সংগ্রহ করে পড়ে নিলে চান্সের ব্যাপারে অনেকটা আশাবাদী হওয়া যায়। তাই পড়াশোনায় বোঝা না মনে করে ভালোবেসে হৃদয়ঙ্গম করে পড়লে সফলতা আপনার কাছে ধরা দেবে।
আপনাদের সবার জন্য শুভ কামনা রইল।

Be Sociable, Share!
বিভাগ: পড়া-লেখা

এখনো কোন মন্তব্য করা হয়নি.

মন্তব্য করুন

*