শিরোনাম

আগেভাগেই মাঠ দখলের পরিকল্পনা

a9e2ffb4a14b2ca49287026e65bc923f-5a531a669eee5নিজস্ব প্রতিবেদক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য আগেভাগে প্রার্থী ঠিক করে আগেই মাঠ দখলের পরিকল্পনা করছে সরকারি দল আওয়ামী লীগ। তবে নির্বাচন কমিশনের তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত তাঁরা সম্ভাব্য প্রার্থীই থাকবেন। তফসিলের পর আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দেওয়া হবে।

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের সূত্র থেকে এ তথ্য জানা গেছে। যেসব আসনে জোটের শরিকদের চাহিদা আছে, সেখানে এই প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হবে না। এ ছাড়া যেখানে জরিপে একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থীর মধ্যে জনপ্রিয়তার পার্থক্য কম, সেগুলোতে শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করা হবে।

তিনটি বিষয় মাথায় রেখে আওয়ামী লীগ আগাম প্রার্থী ঠিক করে তাঁদের মাঠে নামানোর পরিকল্পনার করছে বলে জানা গেছে। তা হলো এক. বিরোধী দলকে অপ্রস্তুত রেখে আগেভাগে মাঠ দখল এবং ভোটারদের কাছে বেশি করে পৌঁছানোর সুযোগ নেওয়া। দুই. এতে অভ্যন্তরীণ বিরোধ থাকলে সেটা মিটিয়ে সর্বাত্মক প্রচার চালানোর জন্য পর্যাপ্ত সময় পাওয়া যায়। তিন. শেষ মুহূর্তে প্রার্থী ঘোষণা করা হলে ভুল শোধরানোর সুযোগ থাকে না।

তবে টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকার কারণে সারা দেশে সরকারি দলে যে কোন্দল রয়েছে, তাতে আগে থেকে কাউকে সবুজসংকেত দিলে অন্যরা নিষ্ক্রিয় হয়ে যেতে পারেন বা বিরোধিতায় নেমে পড়তে পারেন—এমন আশঙ্কাও দলের নেতাদের আছে।

আওয়ামী লীগের তিনজন কেন্দ্রীয় নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে আজকেরবিডি টোয়েন্টিফোরকে বলেন, আগেভাগে প্রার্থীদের অনানুষ্ঠানিকভাবে সবুজসংকেত দেওয়ার বিষয়ে গত শনিবার দলের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইঙ্গিত দিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতি-মণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আজকেরবিডি টোয়েন্টিফোরকে বলেন, নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করাই হচ্ছে আওয়ামী লীগের মূল লক্ষ্য। এ জন্য সব কৌশলই নেওয়া হবে। আগেভাগে প্রার্থী ঠিক করে রাখতে পারলে প্রস্তুতি নিতে সুবিধা হবে—এমন চিন্তাভাবনা দলে আছে।

Be Sociable, Share!
বিভাগ: জাতীয় খবর, প্রধান খবর - ২

এখনো কোন মন্তব্য করা হয়নি.

মন্তব্য করুন

*