শিরোনাম

দুই শ বছরের বটগাছটি ভেঙে পড়ল

ccc5e6840b800024424de8cf0d590d89-narail-1জেলা সংবাদদাতা: বটগাছটির বয়স ছিল প্রায় ২০০ বছর। ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার অজুহাত দেখিয়ে গাছটি কেটে ফেলে সেখানে মার্কেট করতে চাইছিল জেলা পরিষদ। এলাকাবাসীর বাধার মুখে তা আর সম্ভব হয়নি। তবে প্রকৃতির কাছে হার মানল ২০০ বছরের পুরোনো সেই বটগাছ। নড়াইল শহরের মুচিপোল চত্বরে কালের সাক্ষী হিসেবে দাঁড়িয়ে থাকা বটগাছটি গতকাল রোববার রাতের ঘূর্ণিঝড়ে ভেঙে পড়েছে।

গতকাল সোমবার সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, বটগাছটি ভেঙে পড়ায় এর আশপাশের কয়েকটি দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বেশ কয়েকজন শ্রমিক গাছের ডালপালা কাটছেন। চারপাশ থেকে ভাঙা টুকরা সরিয়ে পরিষ্কার করছেন। বটগাছটির ইতিহাস সম্পর্কে জানেন, এমন কয়েকজনকে সেখানে দাঁড়িয়ে কাঁদতেও দেখা গেছে। মাছিমদিয়া গ্রামের সুধীর কুমার সাহা (৮৫) বলেন, ‘বাপ-দাদার মুখে শুনেছি গাছটির ইতিকথা। জমিদার রতন রায় বাহাদুরদের রাজত্বকালের আগে এই বটগাছটি লাগানো হয়।’ তিনি বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষেরা বটগাছের নিচে পূজা করতেন। কালের সাক্ষী হিসেবে এত দিন তা দাঁড়িয়ে ছিল। আজ সেই স্মৃতিচিহ্নটুকু মুছে গেল।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার কয়েকজন দোকানদার আফসোস করে বলেন, পুরোনো এবং ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে অজুহাত দেখিয়ে জেলা পরিষদ সেখানে একটি মার্কেট করার জন্য গাছটি কেটে ফেলার উদ্যোগ নেয়। কিন্তু এলাকার মানুষের জোরালো দাবির কারণে তারা তা করতে পারেনি। এবার ঝড়ে গাছটি ভেঙে পড়ায় জেলা পরিষদের কাজ সহজ হয়ে গেল। এখন আর সেখানে মার্কেট করতে কেউ বাধা দেবে না।
নড়াইল পৌরসভার কাউন্সিলর শরিফুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে ছিল গাছটি। রোববার রাতের ঝড়ে তা শেষ হয়ে গেল। তিনি বলেন, ‘এখানে কিছু জায়গা জেলা পরিষদ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এখানে কী করবে, সেটা তারাই ভালো বলতে পারবে। তবে আমরা একটি কালের সাক্ষীকে হারালাম।’

Be Sociable, Share!
বিভাগ: গ্রাম গঞ্জের খবর

এখনো কোন মন্তব্য করা হয়নি.

মন্তব্য করুন

*