শিরোনাম

আয়কর মেলা শুরু॥ ৩ হাজার কোটি টাকা আয়ের প্রত্যাশা

264676_121নিজস্ব প্রতিবেদক: সারাদেশে আয়কর মেলা শুরু হয়েছে। এবারের আয়কর মেলায় ৩ হাজার কোটি টাকা আয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেন, গতবার আয়কর মেলায় ২ হাজার ১৩০ কোটি টাকা আয় হয়েছিল। মানুষ কর প্রদানের প্রতি উৎসাহী।
বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্মাণাধীন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ভবনে আয়কর মেলার উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাজস্ব বোর্ড চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান, এনবিআরের বিভিন্ন কমিশনার, সরকারি বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব প্রমুখ। আয়কর-সংক্রান্ত সব ধরনের ফরম বিনামূল্যে দেয়া হচ্ছে। করদাতাদের বিনা ভাড়ায় যাতায়াত সুবিধার জন্য রাজধানীর টিএসসি, বেইলি রোড, মিরপুর-২ ও উত্তরা থেকে ১৩টি শাটল বাস নিয়োজিত থাকবে।
এমএ মান্নান বলেন, এবার ৩ হাজার কোটি টাকা আয় হবে বলে আমরা আশাবাদী। ৮ম বারের মতো আয়কর মেলা হচ্ছে। ক্রমশ করদাতাদের সেবার মান বাড়ানো হচ্ছে। এনবিআর সবসময় করদাতা সেবায় নিয়োজিত। তবে রাজস্ব আহরণে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। শুধু এনবিআরের পক্ষে একা কাজ করে দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব হবে না। প্রয়োজন সবার সম্মিলিত সহযোগিতা।

তিনি বলেন, আমরা এখন মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছি। এমন একসময় ছিল যখন আমরা অন্যের উপর নির্ভরশীল ছিলাম। কিন্তু এখন দেশের জনগণ কর দিচ্ছে। ফলে আমরা নিজেরাই নিজেদের উন্নয়ন করছি। তবে দেশের যেকোনো সুবিচার এখনো পুরোপুরিভাবে আমরা প্রতিষ্ঠা করতে পারেনি। এজন্য সবাইকে সচেতন হওয়া দরকার।

এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, আয়করদাতা শনাক্তকরণের জন্য এবার দেয়া হবে আয়কর পিন নম্বর। যে পিন নম্বরের মাধ্যমে আয়করদাতাকে শনাক্ত করা হবে। এছাড়া আয়কর মেলা প্রধানমন্ত্রীর ভাষায় একটি প্রাণের মেলা। যেখানে করদাতারা আনন্দে সব সেবা নিচ্ছেন ও কর দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, ৮৫টি পুরো পরিবার দীর্ঘদিন ধরে আয়কর দিচ্ছে। আমরা তাদের সম্মাননা দিয়েছি। এমনকি একটি পরিবারের সবাই ৫৮ বছর ধরে আয়কর দিচ্ছেন। আমরা গর্বিত এসব করদাতার জন্য। একটি কথায় মনে রাখতে হবে, আমরা সবাই মিলে আয়কর দিলে দেশের উন্নয়ন দ্রুতই সম্ভব।

উল্লেখ্য, এবার আয়কর মেলা এবার ৮ বিভাগীয় শহরে ৭ দিন, ৫৬টি উপজেলায় ৪ দিন, ৩৪টি উপজেলায় ২ দিন ও ৭১টি উপজেলায় (ভ্রাম্যমাণ) ১ দিন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এবার বাড়তি আকর্ষণ করদাতাদের রিটার্ন দাখিলের সাথে সাথে ইনকাম ট্যাক্স আইডি কার্ড ও ইনকাম ট্যাক্সপেয়ার স্টিকার। আর করদাতাদেও সেবায় আয়কর মেলায় ৩৮টি আয়কর রিটার্ন গ্রহণ বুথ, ২২টি হেল্প ডেস্ক বুথ, বৃহৎ করদাতা ইউনিটের ১টি বুথ, সঞ্চয় অধিদপ্তরের ১টি, কাস্টমসের ১টি, মূসক বা ভ্যাটের ১টি, কেন্দ্রীয় কর জরিপ অঞ্চল ১টি, মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ১টি, সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য ১টি, প্রতিবন্ধীদের জন্য ১টি করে বুথ রয়েছে।

মিডিয়া সেন্টার, মেডিকেল টিমের ১টি বুথ, ই-টিআইএন ৩টি বুথ, বিসিএস কর একাডেমির ১টি বুথ, আইআরডি ১টি বুথ, ট্যাকসেস আপিলাত ট্রাইব্যুনাল ১টি, কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনাল ১টি বুথ, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ, এটুআই, এনআইএলজি ১টি, র‌্যাব, পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ৪টি, ই-টিআইএন ৪টি, লাইভ টেলিকাস্ট ১টি, কর শিক্ষণ ফোরাম ১টি, নামাজের স্থান, ক্যান্টিন, ফটোকপি, ট্যাক্স আইডি কার্ড ১০টি বুথ, ই-ফাইলিং ৩টি বুথ, জনতা ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক ৯টি বুথ, ই-পেমেন্ট ও কিউক্যাশের ১টি বুথ রয়েছে।

Be Sociable, Share!
বিভাগ: অর্থনীতি

এখনো কোন মন্তব্য করা হয়নি.

মন্তব্য করুন

*