শিরোনাম

কমলনগর উপজেলায় দুই বোনকে গণধর্ষণের প্রমান পাওয়া গেছে ; বরিশালের স্কুল ছাত্রীকে ঢাকায় এক মাস আটকে রেখে ধর্ষণ

নিজস্ব সংবাদদাতা : কমলনগর উপজেলায় দুই বোনকে গণধর্ষণের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ও গঠিত মেডিকলে বোর্ডের প্রধান ডা. আনোয়ার হোসেন। সোমবার দুপুরে সদর হাসপাতালে সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন তিনি। তিনি জানান, চার সদস্যের একটি মেডিকেল টিম নির্যাতিত ভিকটিমদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে গণধর্ষণের আলামত পেয়েছে।
নির্যাতিত দুই নারীর পরিবারের অভিযোগ, ঘটনার পর থেকে সন্ত্রাসীদের ভয়ে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে তাদের। এ মামলায় এখনও কেউ গ্রেফতার না হওয়ায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন তারা। এদিকে ঘটনার প্রতিবাদ ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে সোমবার সকালে রামগতির ইসলামগঞ্জ বাজারে বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।মামলার বাদী নির্যাতিতদের মা জানান, রাতে তিনিসহ তাদের পরিবারের সদস্যরা সন্ত্রাসীদের ভয়ে ও হুমকি-ধমকিতে ঘুমাতে পারছেন না। এ ছাড়া মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দেওয়া হচ্ছে।
মঙ্গলবার রাতে খোকনসহ ৪-৫ যুবক দুই বোনকে মুখে বেঁধে পাশের পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে গণধর্ষণ করে অচেতন অবস্থায় রেখে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে পাঁচজনকে আসামি করে কমলনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। মামলায় আসামি করা হয় উপজেলার তোরাবগঞ্জ এলাকার খোকন, সিরাজ, ইউসুফ ও করিমকে। rap 2
বরিশাল :
বরিশালের গৌরনদী গালর্স স্কল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে অপহরণ করে ঢাকার আশুলিয়ার একটি বাসায় ২৮ দিন আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে। পুলিশ শনিবার রাতে অভিযান চালিয়ে সেখান থেকে স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার ও ধর্ষক সুলতান আহম্মেদকে গ্রেফতার করে। সুলতান আহম্মেদ পটুয়াখালী জেলার মীর্জাগঞ্জ থানার আমড়াগাছিয়া গ্রামের রশিদ গাজীর ছেলে।
গৌরনদী মডেল থানার ওসি মো. আলাউদ্দিন মিলন জানান, ওই ছাত্রী উপজেলার তিখাসার গ্রামে তার নানা বাড়িতে থেকে পড়াশোনা করে আসছিল। গত ৫ মার্চ সকালে সে স্কুলের উদ্দেশে রওনা হয়। চরগাধাতলী এলাকায় পৌঁছলে বখাটে সুলতানের নেতৃত্বে ৪-৫ সহযোগী অস্ত্রের মুখে তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।
রোববার সকালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ধর্ষিতাকে বরিশালের সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার নানা বাদী হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা করেছেন।স্কুলছাত্রী অভিযোগ করেছে, সুলতান তাকে আশুলিয়ার একটি বাসায় ২৮ দিন আটকে রেখে নির্যাতন চালায়।
Be Sociable, Share!
বিভাগ: অপরাধ (ক্রাইম), প্রধান খবর - ২, সারা বাংলার খবর

এখনো কোন মন্তব্য করা হয়নি.

মন্তব্য করুন

*